নারী নির্যাতন মামলায় ইমরান খন্দকারসহ ৫জনের বিরুদ্ধে পরোয়ানা

চাঁদপুর খবর রিপোর্ট : চাঁদপুর সদর উপজেলার হাপানিয়া নিবাসী ৮মাসের অর্šÍসত্ত্বা স্ত্রী জিলানী চিশতী কলেজের ছাত্রী সুমাইয়া আক্তার(১৯) এর এর দায়েরকৃত নারী নির্যাতন দমন আইন ২০০০(সংশোধনী ০৩/২০২০ ইং)এর ১১ (গ) ধারায় অপরাধ প্রমানিত হওয়ায় স্বামী ইমরান খন্দকারসহ ৫জনের বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানা জারি করেছে আদালত ।

বিষয়টি গতকাল মঙ্গলবার দৈনিক চাঁদপুর খবরকে নিশ্চিত করেছেন উক্ত মামলার বাদীপক্ষের সিনিয়র আইনজীবি চাঁদপুর বারের সাবেক সভাপতি অ্যাড: আব্দুল লতিফ শেখ । তিনি আরো জানান, পিবিআই চাঁদপুর এর দাখিলকৃত উক্ত মামলায় চার্জসীট(রিপোর্ট ) গ্রহন করে গতকাল ১২ সেপ্টেম্বর ১নং আসামী তার স্বামী ইমরান খন্দকারসহ ৫জনের বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানা জারি করেছে আদালত ।

গ্রেফতারী পরোয়ানা জারিকৃত সকল আসামীরা হলেন, ১নং আসামী স্বামী ইমরান হোসেন খন্দকার(২৮) পিতা হাজী আবুল কাশেম খন্দকার ,২নং আসামী আবুল কাশেম খন্দকার (৬৩) পিতামৃত আব্দুল জলির খন্দকার ৩ং আসামী মিসেস আফরুজা প্রকাশ শেফালী (৪৮)স্বামী হাজী আবুল কাশেম খন্দকার,৪নং আসামী বিবি উম্মে হানি ফারহাত (২১)পিতা হাজী আবুল কাশেম খন্দকার সর্ব সাং স্বর্ন খোলা রোড বাসস্ট্যান্ড সংলগ্ন কাশেম খন্দকার ভিলা চাঁদপুর ৫নং আসামী জান্নাতুল ফেরদাউস (২৬)পিতা হাজী আবুল কাশেম খন্দকার স্বামী মোস্তফা খান সাং আশিকাটি, চাঁদপুর সদর ।

জানা গেছে, যার স্মারক নং পিবিআই /চাঁদপুর /১৯২৭ তাং ০৩/০৮/২০২৩ । দীর্ঘ তদন্ত শেষে মামলার সত্যতা পেয়ে চাঁদপুর পিবিআই’র ইন্সপেষ্টর(নি:এম শামীম আহমেদ চাঁদপুরের নারী ও শিশু নিযাতন দমন আদালতে উক্ত চার্জসীট দাখিল করেন ।

চাঁদপুর পিবিআই সূত্রে জানা গেছে, চাঁদপুর সদর উপজেলার হাপানিয়া নিবাসী বাদী সুমাইয়া আক্তার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল দরখাস্ত নং ১১৫/২০০৩ তাং ২৭/০৪/২০২৩ইং এবং স্মারক নং ২৪৫৩ তারিখ ১০/০৫/২০২৩ খ্রি: মামলা দায়ের করেন । উক্ত দরখাস্তের পরিপ্রেক্ষিতে আদালত চাঁদপুর পিবিআইকে তদন্ত করে প্রতিবেদন দিতে নির্দেশ দেন । সেই আলোকে তদন্ত শেষে পিবিআই নারী নির্যাতন দমন আইন ২০০০(সংশোধনী ০৩/২০২০ ইং)এর ১১ (গ) ধারায় অপরাধ প্রমানিত হওয়ায় স্বামী ইমরান খন্দকারসহ ৫জনের নামে আদালতে প্রতিবেদন দাখিল করেন ।

এ ব্যাপারে হাপানিয়া নিবাসী বাদী সুমাইয়া আক্তারের পিতা মিজানুর রহমান খান গতকাল সন্ধ্যায় দৈনিক চাঁদপুর খবরকে জানান, আমার মেয়েকে তার স্বামী-শশুরপক্ষ অমানষিক নির্যাতন করেছে । আমার মেয়ে বর্তমানে ৯মাসের আর্ন্তসত্ত্বা।আমি বিপাকে আছি ।

গতকাল নারী শিশু আদালত থেকে চাঁদপুর পিবিআই’র দাখিলকৃত প্রতিবেদনের আলোকে আদালত সন্তুষ্ট হয়ে আসামীদের বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানা জারি করেছে ।এখন আশা করছি চাঁদপুর মডেল থানা পুলিশ গ্রেফতারী পরোয়ানার আলোকে দ্রুত আসামীদের গ্রেফতার করে কোর্টে সোর্পদ করবে । আমি আদালত থেকে ন্যায় বিচার পেয়েছি ।

সম্পর্কিত খবর