শিক্ষক সমিতির সদ্যসমাপ্ত শিক্ষক আন্দোলনের প্রেক্ষাপটে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ

প্রেস বিজ্ঞপ্তি : বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতির কেন্দ্রিয় কমিটির আহবানে জাতীয়করণের লক্ষ্যে সদ্যসমাপ্ত শিক্ষক আন্দোলনের প্রেক্ষাপটে চাঁদপুর জেলা শাখার সভাপতি প্রধানশিক্ষক মো.আব্বাস উদ্দিন এবং সাধারণ সম্পাদক প্রধানশিক্ষক মোহাম্মদ হোসেন এক যুক্ত বিবৃতিতে জানান – জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কন্যা ও শিক্ষক সমাজের আশা-আকাংখা ও ভরসার একমাত্র বাতিঘর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পক্ষ থেকে ২ আগস্ট ২০২৩ এক আলোচনায় গ্রহীত সিদ্ধান্ত মতে- মাধ্যমিক শিক্ষা জাতীয়করণে বৈষম্য নিরসন খুব দ্রুততার সহিত তাঁর সরকার পদক্ষেপ গ্রহণ করবে বলে আমাদের দৃঢ়বিশ্বাস ।

তাই আমরা বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতি, চাঁদপুর জেলা শাখার এর পক্ষ থেকে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, চাঁদপুরের মাটি ও মানুষের নেত্রী শিক্ষামন্ত্রী ডা.দীপু মনি এমপি, শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল,প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা কবির বিন আনোয়ার ও কেন্দ্রিয় আওয়ামী লীগের শিক্ষা ও মানবসম্পদ বিষয়ক সম্পাদিকা মিসেস সামছুন্নাহারকে আন্তরিক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করছি।

এদিকে বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতি, চাঁদপুর জেলা শাখার এ নেতৃবৃন্দ আরোও জানান- কোনো কোনো শিক্ষক সংগঠনের নেতা বা নেতৃদ্বয় বা হাইব্রিড নামধারী শিক্ষক সরকার থেকে বিভিন্ন কিছু সুযোগ- সুবিধা ভোগ করে ব্যাক্তিগত সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শিক্ষকদের সদ্য সমাপ্ত আন্দোলন নিয়ে বিভ্রান্তিকর বক্তব্য দিয়ে দেশের তথা চাঁদপুরের শিক্ষক সমাজ ও বিটিএ’কে প্রশ্নবিদ্ধ করার অপচেষ্টায় লিপ্ত রয়েছে।

আমরা বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতি, চাঁদপুর জেলা শাখার পক্ষে এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই। আমরা আশাকরি- ভবিষ্যতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বা ফেসবুকে ্ঔ সব নেতা বা নেতৃদ্বয় বা হাইব্রিড নামধারী শিক্ষক এ ধরনের বক্তব্য পরিবেশন থেকে বিরত থাকবেন।

প্রসঙ্গত:মাধ্যমিক শিক্ষা জাতীয়করণ”এর দাবিতে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে ১১ জুলাই-৩১ জুলাই ২০২৩ পর্যন্ত ২১ দিন “ লাগাতার অবস্থান” কর্মসূচি পালনসহ ১ আগস্ট থেকে “ আমরণ অনশন ” এ দেশের শিক্ষক-কর্মচারীদের অংশগ্রহণের ফলে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে ২টি কমিটি গঠনের ঘোষণাসহ কমিটিতে বিটিএ্র’র প্রতিনিধি রাখার সিদ্ধান্ত এবং তাঁর পক্ষে শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল,প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা কবির বিন আনোয়ার ও আওয়ামী লীগের শিক্ষা ও মানবসম্পদ বিষয়ক সম্পাদক শামসুন্নাহার চাঁপা’র মধ্যস্থতায় প্রাথমিকভাবে সরকারি ও বেসরকারি বৈষম্য দূরীকরণ (বাড়ি ভাড়া,উৎসব ভাতা,চিকিৎসা ভাতা ও বেতন বৈষম্য),বদলী ও ১০% কর্তনসহ সকল অসংগতি দূরীকরণের আশ্বাস পাওয়া গেছে।

তাই কেন্দ্রিয় নির্দেশেই সকল শিক্ষকগণ স্ব স্ব প্রতিষ্ঠানে ফিরে কর্মস্থলে যোগদান করেছেন। পাশাপাশি আন্দোলনকালে শিক্ষার্থীদের যে ঘাটতি হয়েছে -তা পুষিয়ে দেবার জন্যে শিক্ষকদের প্রতি অনুরোধ জানিয়েছেন।

 

সম্পর্কিত খবর