হাইমচরে শিশু ধর্ষণ মামলায় যুবকের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড

স্টাফ রিপোর্টার : চাঁদপুরের হাইমচর উপজেলার পূর্ব চরকৃষ্ণপুর গ্রামে রাতের বেলায় ঘুমন্ত শিশুকে বাগানে নিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণের ঘটনার মামলায় আদালত মো: শাহ আলম (২৮) নামে ব্যক্তিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড, ৫০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড এবং অনাদায়ে আরো ৬ মাসের সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন।

১৫ জুন বৃহস্পতিবার দুপুরে চাঁদপুরে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক জান্নাতুল ফেরদাউস চৌধুরী এই রায় প্রদান করেন। কারাদণ্ডপ্রাপ্ত শাহ আলম সদর উপজেলার চান্দ্রা ইউনিয়নের বাখরপুর গ্রামের মো: ফারুক মোল্লার ছেলে। ধর্ষণের শিকার শিশুটি শাহ্ আলমের নিকটাত্মীয়।

মামলার বিবরণে জানা যায়, ২০১৪ সালের ১৬ জুন রাতে আসামী শাহ্ আলম তার শ্বশুর বাড়ী চরকৃষ্ণপুর যান। তার আগ থেকেই তার স্ত্রী নুরুন্নাহার ওই বাড়ীতে বেড়াতে যান। ঘটনার রাতে শাহ আলম তার স্ত্রীকে গিয়ে পাননি। স্ত্রী তার মামার বাড়ী বেড়াতে গিয়েছিলেন। ওই সময় শাহ আলম শ্বশুর বাড়ীর একটি ঘরে ঘুমিয়ে থাকা শিশুকে কোলে তুলে পাশের বাগানে নিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। শিশুটি চিৎকার করলে বাড়ীর লোকজন এগিয়ে আসে।

শিশুটিকে প্রথমে হাইমচর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এবং পরবর্তীতে চাঁদপুর জেনারেল হাসপালে এনে ভর্তি করায়। হাসপাতালেই শিশুটির চিকিৎসা হয়।

এ ঘটনায় ১৭ জুন শিশুর নানা হাইমচর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মো: শাহ আলম এর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। মামলাটি তৎকালীন হাইমচর থানার এসআই আবদুল হালিম সরকারকে তদন্তের দায়িত্ব দেয়া হয়। মামলাটি তদন্ত শেষে ২০১৪ সালের ৩০ আগস্ট আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন।

সরকার পক্ষের আইনজীবী এপিপি খোরশেদ আলম শাওন জানান, মামলাটি দীর্ঘ ৯ বছর চলাকালীন সময়ে আদালত ৬ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ করেন। সাক্ষ্য গ্রহণ ও মামলার নথি পর্যালোচনা করে অভিযোগের প্রমাণ পাওয়ায় বিচারক এই রায় প্রদান করেন। রায়ের সময় আসামি আদালতে অনুপস্থিত ছিলেন। মামলায় আসামি পক্ষে ছিলেন আইনজীবী মো: হান্নান কাজী।

সম্পর্কিত খবর