চাঁদপুরে বিশ্ব রেড ক্রস ও রেড ক্রিসেন্ট দিবস উদযাপন

স্টাফ রিপোর্টার ঃ বিশ্ব রেড ক্রস ও রেড ক্রিসেন্ট দিবস উপলক্ষে চাঁদপুর ইউনিটের আয়োজনে দিনব্যাপী ব্যাপক সেবামূলক কার্যক্রম অনুষ্ঠিত হয়েছে।

গতকাল ৮ মে সোমবার চাঁদপুর শহরস্থ রেড ক্রস ও রেডক্রিসেন্ট ইউনিট কার্যালয়ে রেড ক্রিসেন্ট ও রেড ক্রস আন্দোলনের প্রতিষ্টাতা জ্বীন হেনরী ডুনান্টের ১৯৫ তম জন্মবার্ষিকী এবং বিশ্ব রেড ক্রস ও রেড ক্রিসেন্ট দিবস উপলক্ষে চাঁদপুর ইউনিট দিনব্যাপী এই আয়োজন করেন।

এদিন সকালে চাঁদপুর শহরে বর্নাঢ্য রেলী, বিনামূল্যে রক্তের গ্রুপ করন, স্বেচ্ছায় রক্তদান, হাসপাতালে টিপিন বিতরন, চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরনসহ আলোচনা সভা অনুষ্টিত হয়েছে। বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্টানের ছাত্র, ছাত্রীসহ যুব রেড ক্রিসেন্ট ও রেড ক্রসের আজীবন সদস্য ও চাঁদপুর ইউনিট কর্মকর্তাদের ব্যাপক উপস্থিতিতে সকাল সাড়ে ৯ টায় জাতীয় পতাকা উত্তোলনের মধ্যে দিয়ে বর্নাঢ্য শোভাযাত্রার উদ্বোধন করেন চাঁদপুর ইউনিট ও চাঁদপুর জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ্ব ওচমান গনী পাটওয়ারী।

এসময় রেড ক্রসের পতাকা উত্তোলন করেন সাধারন সস্পাদক আলহাজ এম এ সাসুদ ভূঁইয়া। শোভা যাত্রাটি শহরের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক অতিক্রম শেষে চাঁদপুর প্রেসক্লাব সংলগ্ন চাঁদপুর ইউনিট কার্যালয়ে এসে শেষ হয়।

পরে এখানে এক সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভায় চাঁদপুর ইউনিট কার্যনিবার্হী পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ্ব ওচমান গনি পাটওয়ারী বলেন, আজ বিশ্ব রেড ক্রস ও রেড ক্রিসেন্ট দিবস এবং রেড ক্রস ও রেডক্রিসেন্ট আন্দোলনের প্রতিষ্টাতা জ্বীন হেনরীর ১৯৫ তম জন্মদিন। এই মহান মানুষটি সেবার মনোভাব নিয়ে যে সংগঠনটি গড়ে তুলেছেন আজ তার সেই সংগঠন রেড ক্রস ও রেড ক্রিসেন্ট সারা বিশ্বে সেবার দিক থেকে সর্ববৃহৎ সংগঠন হিসেবে অনন্য ভূমিকা পালন করে আসছে। প্রাকৃতিক বিপর্যয়, দুর্যোগপূর্ণ পরিবেশ ছাড়াও নানাহ প্রতিকুল পরিস্থিতিতে রেড ক্রস ও রেড ক্রিসেন্ট সেবা দিয়ে যাচ্ছে। করোনাকালীন সময় রেড ক্রিসেন্টের হাজার হাজার স্বেচ্ছাসেবক কর্মীদের ভূমিকা ছিল অনন্য।

তিনি করোনাকালীন সময় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার অনবদ্য অবদানের কথাও স্মরন করেন কৃতজ্ঞতার সাথে। তিনি বলেন, করোনাকালীন সময় বিশ্বের অনেক দেশেই মহাবিপর্যয় নেমে আসে। তাদের ধারনা ছিল এসময় বাংলাদেশেও মহাবিপর্যয় নেমে আসবে। কিন্তু আল্লাহর রহমতে এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দুরদর্শিতার কারনে আমরা বিপর্যয় থেকে রক্ষা পেয়েছি। প্রধানমন্ত্রীর আন্তরিকতায় আমরা বিনামূল্যে করোনা প্রতিশোধক ভ্যাকসিন পেয়েছি।

তার এই প্রচেষ্টা বিশ্ব মাঝে প্রশংসিত হয়েছে। যে সকল সংগঠন বা প্রতিষ্টান মানবিক ও সেবামূলক কাজের সাথে জড়িত রয়েছেন তাদেরকে অ্যাওয়ার্ড প্রদান করা যায় কিনা এ লক্ষে রেডক্রস ও রেডক্রিসেন্ট কর্মকর্তাদের দৃষ্টি আকর্ষণ পূর্বক চাঁদপুর বি এম মাজহারুল হক চক্ষু হাসপাতাল, চাঁদপুর ডায়াবেটিস সমিতি, করোনাকালীন সময় চাঁদপুরে কর্মরত চিকিৎসকবৃন্দদের মাঝে অ্যাওয়ার্ড প্রদানের বিষয়টিও তিনি প্রস্তাবনা করেন।

তিনি রেড ক্রস ও রেডক্রিসেন্টের সেবার মান যাতে আরো বৃদ্ধি পায়, সেজন্য সকলের সহযোগীতা কামনা করেন। তিনি বলেন অনন্য উচ্চতায় চাঁদপুর রেড ক্রস ও রেডক্রিসেন্ট বিভিন্ন পরিস্থিতিতে সেবা দিয়ে যাচ্ছে, যা সত্যি খুবই প্রশংসনীয়। তিনি সুন্দর আয়োজনের জন্য দিবস উদযাপন পরিষদের আহ্বায়ক ও সদস্যসচিব সহ ইউনিটের সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

চাঁদপুর ইউনিটের কার্য নির্বাহী সদস্য সুভাষ চন্দ্র রায়ের সভাপতিত্বে এসময় বক্তব্য রাখেন সেক্রেটারী ও ডেলিগেট আলহাজ্ব এম এ মাসুদ ভূইয়া, আজীবনল সদস্য স্বাধীনতা পদক প্রাপ্ত বীর মুক্তিযোদ্ধা ডাঃ সৈয়দা বদরুন্নাহার চৌধুরী, কার্য নির্বাহী সদস্য ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ বেলায়েত হোসেন বিল্লাল গাজী , আজীবন সদস্য রহিম বাদশা।

এসময় অন্যান্যর মাঝে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ব রেড ক্রস ও রেডক্রিসেন্ট দিবস ২০২৩ উদযাপন পরিষদের আহ্বায়ক কার্য নির্বাহী সদস্য মোহাম্মদ আলী জিন্নাহ , সদস্য সচিব ও কার্য নির্বাহী সদস্য তমাল কুমার ঘোষ, কার্য নির্বাহী সদস্য অ্যাডঃ জহিরুল ইসলাম জহির, কার্য নির্বাহী সদস্য আবু নাছের বাচ্চু পাটোয়ারী, কার্য নির্বাহী সদস্য মোসাঃ রেহানা আক্তার তৌহিদা, চাঁদপুর ইউনিট কর্মকর্তা মোঃ ইমরান হোসেন, আজীবন সদস্য মোর্শেদা ইয়াছমিন, শেখ মহিউদ্দিন রাসেল, লায়লা হাসান চৌধুরী, পারভেজ করিম বাবু, কল্পনা সরকার, তপন চন্দ্র চন্দ্র, ডাঃ পার্থ সারথী দে, শাহদাৎ হোসেন খান মানিক, মোঃ আলমগীর হোসেন পাটওয়ারী প্রমুখ।

একই রকম খবর